আধুনিক জীবনে ইসলামের প্রয়োগ নিয়ে লেখা ৫টি আলোচিত বই

আধুনিক জীবনে ইসলামের প্রয়োগ নিয়ে লেখা ৫টি আলোচিত বই

১৪০০ বছর আগে পৃথিবী যেমন ছিলো এখন তেমন নেই। প্রিয়নবী (সাঃ) সময়ে যেমন সামাজিক কাঠামো ছিলো এখন তাও নেই। তখন মুসলিমরা অত্যন্ত ধর্মপ্রান ছিলো। মুসলিমরা তাদের ঈমানী শক্তির কারনে বিশ্বজয় করেছে। কিন্তু আজকাল আমাদের সেই ঈমান হয়ে গেছে জরাঝীর্ণ ঘরের মতো যা একটু দমকা বাতাসেই ভেঙে পড়বে। আধুনিকতার নামে বিধর্মীদের সংস্কৃতি নিজেদের মধ্যে ধারন করে আমরা এখন সভ্য হয়েছি। আসলে এটা আমাদের সভ্য করেনি, করেছে বিশৃঙ্খল, দায়িত্বহীন আর উগ্র। তরুনরাই সবচেয়ে বেশি আধুনিক সব ট্রেন্ডের বলী হয়। এতে অনেকে জীবনের গতি হারিয়ে ফেলে। আমাদের দেশের সেই তরুনদেরই কয়েকজন আবার সেই স্রোতের বিপরীতে দাঁড়িয়ে স্রোতে ভেসে যাওয়া তরুনদের রক্ষা করতে চেষ্টা করে। তাহলে প্রিয় পাঠক দেখে নিন কয়েকজন তরুন লেখকের লেখা ৫টি বই যা বর্তমান সময়ের তরুনদের জন্যে খুবই উপকারী। 

 

এবার ভিন্ন কিছু হউক

এই বইটি লেখক আরিফ আজাদের “বেলা ফুরাবার আগে” বই এর দ্বিতীয় কিস্তি। এ বছরই এটি সমকালীন প্রকাশনী থেকে পাবলিশড হয়। লেখক আরিফ আজাদ তরুনদের জন্যে এক জীবন্ত আলোকবর্তিতা। তরুন মনে উদ্ভুত হওয়া সন্দিহান প্রশ্নগুলোর বৈজ্ঞানিক ও চুলছেড়া বিশ্লেষনের মাধ্যমে উত্তর দিয়ে তিনি পাঠকদের মন জয় করে নিয়েছেন। প্রচারবিমূখ এই লেখককে কখনই কোনো মিডিয়ায় দেখতে পাওয়া যায় না। তিনি পর্দার অন্তরালে থেকেই আলো ছড়াতে চান। “এবার ভিন্ন কিছু হউক” তাঁর লেখা সর্বশেষ বই। ১৯৪ পৃষ্ঠার এই বইটির মূল্য ৩৩০টাকা। এবার বইটির লেখা নিয়ে দু চারটি কথা বলা যাক।

কিভাবে জীবনের একঘেয়ামি দূর করে আত্মশুদ্ধি অর্জন করা যায়, কিভাবে নতুন অনুপ্রেরনা নিয়ে জীবনে এগিয়ে যাওয়া যায় এই বই এ লেখক সেসব নিয়েই কথা বলেছেন। আমরা আধুনিক মানুষ জীবনকে অনেক বেশি ব্যস্ত করে ফেলেছি, জীবনেরও যে একটা চাহিদা আছে, সেটাও যে পূরন করতে হয় তা আমরা ভুলে গেছি। ইসলামী কালচারের অভাব আমাদের কোথায় নিয়ে গেছে। কিভাবে সেসব থেকে ফিরে এসে নতুন করে জীবন সাজানো যায় সে বিষয়গুলো লেখক সহজ করে তুলে ধরেছেন। অনেকেই মনে করছেন যে, জীবনে অন্ধকার নেমে এসেছে, জীবনের গতি হারিয়ে গেছে, অফিস, কাজ, খাওয়া, ঘুমের চক্রে জীবন আটকে গেছে, একঘেয়ামিতে ভরে গেছে সব। তারা আরিফ আজাদের এই বইটি একবার পড়ে দেখতে পারেন। আসলে আরিফ আজাদের এখন পর্যন্ত প্রকাশিত হওয়া সব বইতেই তিনি আলোর পথ দেখিয়েছেন অন্ধকারে থাকা মানুষদের। তিনি পরিবর্তন চান ইসলামের পথ ধরে। 

 

প্যারাডক্সিকাল সাজিদ

“প্যারাডক্সিকাল সাজিদ” বইটি তরুন লেখক আরিফ আজাদের লেখা প্রথম বই। এখন পর্যন্ত এই বইটির ২টি কিস্তি প্রকাশিত হয়েছে। প্রথমটি ২০১৭ সালে ও দ্বিতীয়টি ২০১৯সালে প্রকাশিত হয়। বইটি বেস্ট সেলার বই এর মর্যাদা পায়। গার্ডিয়ান প্রকাশনী থেকে পাবলিশ হওয়া বইটি মূলত ইসলামী আদর্শ ও মতবাদ নিয়ে লেখা একটি বই। বাংলা ভাষায় রচিত এই বই এর পৃষ্ঠা সংখ্যা ১৬০। বইটির মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে ২০০টাকা।  

এই বইতে লেখক সাজিদ নামের এক কাল্পনিক চরিত্রের মাধ্যমে অবিশ্বাসীদের সব প্রশ্ন ও মিথ্যাচারের জবাব দিয়েছে। সাজিদ ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া একজন ছাত্র যে ইসলামী ভাব ধারা নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দে ছিলো। লেখক সাজিদের রুমমেট থাকার সুবাধে প্রায়ই এসব বিষয় নিয়ে লেখকের সাথে সাজিদের বিতর্ক হতো। তবে এক সময় লেখক পুনরায় সাজিদের বিশ্বাস ফিরিয়ে আনতে সক্ষম হন। এরপর সাজিদ নিজেই একে একে তাঁর শিক্ষক ও বড় ভাইদের সাথে ইসলামী বিভিন্ন বিষয় ও স্রষ্টার অস্তিত্ব নিয়ে বিতর্ক করত। মূলত তারা ছিলো স্রষ্টায় অবিশ্বাসী। সাজিদ তাদের কড়া কড়া সব প্রশ্নের উত্তর দেয় বিজ্ঞান ও যুক্তির সমন্বয়ে। তাঁর এসব যুক্তির কাছে পর্যদুস্ত হয় তাঁর পরিচিত বড় ভাই ও শিক্ষক। লেখক আসলে এই বইটি অবিশ্বাসীদের বিরুদ্ধে বিশ্বাসীদের জবাব কেমন হবে তাই দেখিয়েছেন। প্রচলিত ইসলামী ধারার উত্তরের বাইরে এখানে বৈজ্ঞানিক ও যুক্তি দিয়ে সব প্রশ্নের উত্তর দেয়া হয়েছে। প্রতিটি কলেজ, ভার্সিটি পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের বইটি একবার হলেও পড়া উচিৎ। এতে সে যদি মুসলিম হয় তবে তাঁর ঈমান আরো স্ট্রং হবে আর অবিশ্বাসী হলেও অনেক কিছুর উত্তর পাবে।

 

হালাল বিনোদন

এই বইটি একটি অনুবাদক বই। এই বইটির মূল লেখক প্রখ্যাত শায়খ ও ইসলামিক গবেষক আবু মুয়াবিয়া ইসমাইল কামদার। বইটি অনুবাদ করে বাংলায় আমাদের পড়ার সুযোগ করে দিয়েছেন বাংলাদেশের তরুন লেখক মাসুদ শরীফ। তিনি এখন পর্যন্ত অনেকগুলো ইসলামী বই অনুবাদ করে বেশ সুনাম কুড়িয়েছেন। শিক্ষা জীবন তিনি ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়াশুনা করলেও ইসলামের প্রতি তাঁর ছিলো ব্যাপক অনুরাগ। সেজন্যে তিনি ২য় বার স্নাতক করেন ফ্লোরিডার একটি ইউনিভার্সিটি থেকে ইসলামিক স্টাডিজ নিয়ে। বৈচিত্রময় জীবনের অধিকারী এই তরুন লেখক এখন পর্যন্ত বেশ কয়েকটি ইসলামী বই অনুবাদ করেছেন । “হালাল বিনোদন” এই বইগুলোর একটি । গার্ডিয়ান পাবলিকেশন থেকে প্রকাশিত হওয়া এই বইটি ৭৯ পৃষ্ঠার মূল্য ১০০টাকা।

যেকোনো ধরনের বিনোদন যেমনঃ নাটক দেখা, মুভি দেখা, ভিডিও গেইম খেলা এসবে ইসলামী দিক থেকে একটা বিধি নিষেধ আছে। এখন অনেকেই মনে করেন তাহলে ইসলামে কি সব বিনোদন নিষেধ নাকি? আসলে ইসলামে সব বিনোদন নিষেধ নয়। বিনোদনের অনেকগুলো উপায় আছে। যেগুলো আবার হালাল হারামে বিভক্ত। আপনি পরিপূর্ণ মুমিন হতে চাইলে অবশ্যই হারাম বিনোদন বর্জন করে হালাল বিনোদন করতে হবে। কিভাবে আপনি হালাল হারাম বিনোদনের পার্থক্য করবেন এই বইতে সেই বিষয়গুলো সহজভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। তরুনদের বইটি পড়া উচিৎ। 

 

রিভাইভ ইউর হার্ট

এই বইটিও একটি অনুবাদক বই । বইটির মূল লেখক ড নোমান আলী খান। পাকিস্তানী বংশদ্ভুত এই মার্কিন ইসলামিক স্কলার ও গবেষক একে একে অনেকগুলো বই লিখে সারা বিশ্বে পরিচিত পেয়েছেন। বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাকে ইসলামী বিভিন্ন বিষয়ের উপর স্পিচ দিতে দেখা যায়। বইটিকে বাংলায় অনুবাদ করেছেন তরুন ইসলামীক মননশীল ব্যক্তিত্ব মারদিয়া মমতাজ। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়(বুয়েট) থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করা এই তরুনী ইসলামিক বই অনুবাদ করে জনপ্রিয়তা পেয়েছেন। বইটি গার্ডিয়ান পাবলিকেশন থেকে ২০১৯সালে প্রকাশিত হয়। ১৪৪ পৃষ্ঠার এই বইটির মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে ১৭৫টাকা। 

হৃদয়ের গহীনে লুকিয়ে থাকা বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর এই বইটিতে দেয়া হয়েছে। কিভাবে আমরা রাব্বুল আলামিনের কাছে নিজেদের কথা বলব? কিভাবে একটি সুন্দর সমাজ গড়ে তুলব? সে বিষয়গুলো বইতে তুলে ধরা হয়েছে। বইটি ক্লান্ত হৃদয়ে এক প্রশান্তি এনে দেয়। বইটির প্রতিটি পাতা আপনাকে যেন পুনর্জীবন দিবে এমন একটা অনুভূতি পাওয়া যাবে এই বইটি পড়লে। বর্তমান সময়ে আমাদের অতি ব্যস্ততা আমার হৃদয়গুলোকে ক্লান্ত করে রাখে। এই ক্লান্ত হৃদয়কে আরো ক্লান্ত করে তোলে মুভি,নাটক ও ডিভাইস। আর হৃদয়ে প্রশান্তু আনে এ ধরনের অনুপ্রেরণামূলক বই। বইটি যে কেউ পড়ে দেখতে পারেন, অসম্ভব একটা সুন্দর অনুভূতি পাবেন।

 

বি স্মার্ট উইথ মুহাম্মাদ (সাঃ)

বইটির মূল লেখক ড. হিসাম আলা আওয়াদী। বাংলায় অনুবাদ করেছেন মাসুদ শরীফ। মাসুদ শরীফ এই সময়ের একজন আলোচিত ইসলামী ভাব ধারার লেখক। মূলত তিনি খুবই জনপ্রিয় কয়েকটি ইসলামী বই বাংলায় অনুবাদ করে পাঠক হৃদয় জয় করেছেন। ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়াশুনা করেও পেশা হিসেবে বেচে নিয়েছেন আলো ছড়ানোর বই লেখাকে। মহানবী (সাঃ) এর আদর্শ কিভাবে আমরা আমাদের জীবনে প্রয়োগ করব সেই বিষয়টি এই বই এ তুলে ধরা হয়েছে। ২০১৭সালে বইটি প্রকাশিত হয় গার্ডিয়ান পাবলিকেশন্স থেকে। বইটিতে মোট ১৪৪ পৃষ্ঠা রয়েছে এর মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে ১৭৫টাকা

রাসূল সাঃ এর নব্যুয়ত প্রাপ্তির আগের ঘটনাই এখানে বেশি উল্লেখ করা হয়েছে। কিভাবে তিনি শৈশব থেকে কৈশোরে উপনীত হয়েছেন। কিভাবে কিশোর বয়সের প্রতিবন্ধকতার সাথে লড়ে গেছেন । যৌবনেই কিভাবে নেতৃত্ব অর্জন করেন। কিভাবে নিজের ব্যক্তিত্বকে অসাধারন অনুকরনীয় করে তোলেন সেই বিষয়গুলো এই বইতে খুব মাধুর্যতার সাথে তুলে ধরা হয়েছে। সৃষ্টি জগতের সর্ব শ্রেষ্ঠ সৃষ্টি হলো আল্লাহর হাবিব আমাদের প্রিয়নবী মোহম্মদ (সাঃ)। তিনি তাঁর জীবনকে কিভাবে এত বেশি কৌতুহলী করে গড়ে তুললেন এই বিষয়গুলো কাজে লাগিয়ে কিভাবে আমরা আমাদের জীবনকে সুন্দর করে তুলবো সেটাই এই বইতে তুলে ধরেছেন লেখক। তরুন প্রজন্মের প্রত্যেকের এই বইটি একবার হলেও পড়া উচিৎ। অনেক কিছু শিখতে পারবেন বলে মনে করি। 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Main Menu