জনপ্রিয় ৫টি ইসলামিক বই

জনপ্রিয় ৫টি ইসলামিক বই

ইসলামের ইতিহাসে আমাদের এই উপমহাদেশে দ্বীনের অনেক দাঈ ও ইসলামিক স্কলার জন্মগ্রহন করেছেন। যুগ যুগ ধরে তারা এই অঞ্চলে জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে আসছেন। সত্যকে প্রতিষ্ঠিত করতে তারা অনেক ঘাত প্রতিঘাতের উপর দিয়ে গেছেন। তাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে আমরা আজকের এই ইসলাম পেয়েছি। কাল পরিক্রমায় যখনই ইসলামের উপর কোনো আক্রমন এসেছে তখনই কান্ডারি হয়ে এগিয়ে এসেছে কোনো না কোনো দাঈ ইলাল্লাহ। পরিস্থিতির প্রয়োজনে ব্যবহৃত হয়েছে তরবারি, কলম। আজকে আমরা আলোর মানুষদের কয়েকটি বই নিয়ে সংক্ষেপে আলোচনা করব।

 

সহীহ দু’আ ঝাড়ফুঁক ও যিকর

বইটি লিখেছেন প্রখ্যাত ইসলামিক স্কলার আল্লামা আব্দুল হামীদ ফাইযী আল মাদানী। বইটি প্রকাশিত হয় তৌহিদ পাবলিকেশন থেকে। ২০১৯সালে বইটির ৫ম সংশোধনী আসে। বইটিতে পৃষ্ঠা রয়েছে ১৭৬টি। বইটি বাংলা ও আরবী দুই ভাষাতেই লেখা। বইটির আইএসবিএন নাম্বার 9789848766357। বইটির মূল্য ১১০টাকা। 

দোয়া ও ঝাড়ফুক নিয়ে আমাদের দেশে বিতর্কের শেষ নেই। ইসলামিক পন্ডিতগনের এই বিষয়ে মতভেদ রয়েছে। তবে এই বইটি পড়ার মাধ্যমে আপনি সঠিক নিয়মে দোয়া করার পদ্ধতি জানতে পারেবেন। এছাড়া ঝাড়ফুকের মতো বিতর্কের বিষয়ে এই বইতে খুব সহজ আলোচনা করা হয়েছে। যিকর করার পদ্ধতি, কোনটা করা যাবে আর কোনটা যাবে না, পরিপূর্ন দিক নির্দেশনা রয়েছে বইটিতে। 

 

কুরআন হাদীসের আলোকে যাদুটোনা ঝাড়ফুঁক, জ্বীনের আছর, তাবিজতুমার

বইটির লেখক শায়খ ওয়াহিদ বিন আব্দুস সালাম বালি। বইটি প্রকাশিত হয়েছে ইসলাম হাউজ পাবলিকেশন থেকে। বইটির ৬ষ্ঠ ইডিশন গত বছর বের হয়। এটি সম্পূর্ণ বাংলা ভাষায় লেখা বই। বই এর পৃষ্ঠা সংখ্যা ২৩২ এবং বইটির মূল্য ২৫০ টাকা। 

আল্লাহ পাক মানুষকে সৃষ্টি করেছেন আবার জ্বীনও সৃষ্টি করেছেন । তাই জ্বীন জাতিকে অস্বীকার করার উপায় নেই। পবিত্র কুরআনে স্পষ্ট করে জ্বীন জাতির অস্তিত্বের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। তাই কেউ যদি তা অস্বীকার করে তবে তা কুরআনের কোনো বিষয়কে অস্বীকার করার শামিল হবে। এই জ্বিন জাতির মধ্যে ভালো ও দুষ্টু জ্বিন রয়েছে। ভালো জ্বিন দ্বারা মানুষ উপকৃত হলেও দুষ্টু জ্বিন মানবজাতির অনেক ক্ষতি করে। এসব জ্বিন থেকে বাচার উপায় বইতে উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া তাবিজ, যাদু এসবকে ইসলামে কঠোরভাবে নিষেধ করা হয়েছে। তবে ঝাড়ফুক যদি ইসলামসম্মত হয় তবে তা জায়েজ। তাবিজ করা আর শিরক করা একই কথা। না জেনে আমরা অনেক বড় গুনাহের কাজ করে থাকি। জ্বীন, তাবিজ, যাদুটোনা, ঝাড়ফুকের বিষয়গুলো সুষ্পষ্টভাবে তুলে ধরা হয়েছে। 

 

প্যারাডক্সিকাল সাজিদ ২

“প্যারাডক্সিকাল সাজিদ” বইটি তরুন লেখক আরিফ আজাদের লেখা প্রথম বই। এখন পর্যন্ত এই বইটির ২টি কিস্তি প্রকাশিত হয়েছে। প্রথমটি ২০১৭ সালে ও দ্বিতীয়টি ২০১৯সালে প্রকাশিত হয়। বইটি বেস্ট সেলার বই এর মর্যাদা পায়। সমকালীন প্রকাশনী থেকে পাবলিশ হওয়া বইটি মূলত ইসলামী আদর্শ ও মতবাদ নিয়ে লেখা একটি বই। বাংলা ভাষায় রচিত এই বই এর পৃষ্ঠা সংখ্যা ২২৫। বইটির মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে ৩৭০টাকা। 

 বইটিতে ইসলাম সম্পর্কে অনেক মিথ্যাচারের জবাব দেয়া হয়েছে ক্ষুরদার যুক্তির মাধ্যমে। খ্রীষ্টান মিশনারিদের নানান প্রশ্নের জবাব, ইসলাম অমুসলিমদের যথেষ্ট অধিকার দিতে পারে কিনা, বনু কুরাইজা হত্যাকান্ড ও  এর পেছনের ঘটনাবলী, কেন রাসূলকে একাধিক বিবাহ করতে হলো, ডারউইনের বিবর্তন বিদ্যা, কুরআন কেন আরবী ভাষায়, পদার্থবিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয়ের ধর্মীয় দৃষ্টিকোন থেকে ব্যাখ্যা করা হয়েছে। গল্পে গল্পে বইটিতে বাস্তবভভিত্তিক এমনসব যুক্তি দিয়ে ইসলামের সত্যতা প্রমান করা হয়েছে যা অবিশ্বাসীদের নির্বাক করে দিতে পারে। নিজের জ্ঞান ভান্ডারকে সমৃদ্ধ করতে ও বিশ্বাসকে আরো পাকাপোক্ত করতে বইটি একবার হলেও পড়ে দেখা উচিৎ।

 

মেসেজ

“মেসেজ” বইটি বাংলাদেশের বর্তমান সময়ের  বিশিষ্ট ইসলামিক স্কলার ড. মিজানুর রহমান আজহারী। অল্পদিনে নিজের প্রজ্ঞা ও নান্দনিক ব্যবহার দিয়ে সবার হৃদয় জয় করেছেন। বইটি তাঁর লেখা প্রথম বই। মিজানুর রহমান আজহারীকে চেনেন না এ্মন কাউকে পাওয়া কঠিন । ১৯৯০সালে জন্মগ্রহন করা এই লেখক আলিয়া মাদ্রাসায় পড়াশুনা করেন। তিনি একাধারে দাখিল ও আলিম পরীক্ষায় সারাদেশে প্রথম হয়েছিলেন। এছাড়াও তিনি মিশরের বিখ্যাত আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চ শিক্ষা গ্রহন করেন, এজন্যে তাঁর নামের সাথে আজহারী শব্দটি যুক্ত করা হয়। তিনি এম ফিল, পি এইচ ডি করেন মালয়শিয়ার একটি ইসলামী ইউনিভার্সিটি থেকে। বইটি প্রকাশিত হয় গার্ডিয়ান পাব্লিকেশন থেকে ২০২১ সালে। মোট ২৯৬ পৃষ্ঠার এই বইটির মূল্য ২৭৫ টাকা।

বইটির সম্পূর্ণ নাম “মেসেজ, আধুনিক মননে দ্বীনের ছোঁয়া”। এই বইতে লেখক ইসলামের সৌন্দর্য,পবিত্রতা ও বরকতের বিষয়গুলো তুলে ধরেছেন। ইসলামকে আমরা কঠিন করে ফেলেছি। ফলে তরুন প্রজন্ম ইসলামের প্রকৃত স্বাদ নিতে চায় না। কিভাবে তারা ইসলামকে উপভোগ করে দ্বীনদার হবে সে বিষয়ে অত্যন্ত সুন্দর ও সাবলীলভাবে তুলে ধরেছেন সময়ের অন্যতম সেরা ব্যক্তিত্ব মিজানুর রহমান আজহারী। ইসলাম যে কত সুন্দর, সহজ, কতটা মধুর তা বইটির মাধ্যমে উপলব্ধি করা যায়। লেখক মূলত মেসেজ দিয়েছেন সেই সব তরুনদের যারা ইসলাম থেকে দূরে সরে গেছে, অন্ধকারে ডুবে যাওয়া, ক্যারিয়ারের দুশ্চিন্তায় মজে থাকা প্রতিটি যুবকের এই বইটি পড়া উচিৎ।

 

বেলা ফুরাবার আগে 

বর্তমান সময়ের অত্যন্ত জনপ্রিয় ইসলামিক লেখক আরিফ আজাদ। তরুনদের খুব পছন্দের এই লেখক খুবই প্রচার বিমূখ জীবন যাপন করেন। সারাদেশে তার বই সবচেয়ে বেশি বিক্রি ও জনপ্রিয় হয়ে উঠার পরেও তাকে মিডিয়ার সামনে আসতে দেখা যায় না। এই বইটি সমকালীন প্রকাশনী ২০২০সালে প্রকাশিত হয়। বইটির আইএসবিএন নাম্বার 9789849484400 এবং এর পৃষ্ঠা সংখ্যা ১৯২। এর মূল্য নির্ধারিত হয়েছে ৩১৫টাকা।

বইটিকে বলা যায় ঝং ধরে যাওয়া বর্তমান তরুনদের ঈমানকে শক্তিশালী করে তোলার হাতিয়ার। বইটিতে লেখক প্রতিদিন  করা আমাদের ভুল গুলো চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন। বর্তমান প্রজন্ম তো জানেই না এক সময় টিভি দেখা পাপ মনে করে ছোটরাও টিভি দেখতে চাইতো না। বর্তমান জেনারেশন তো অবুঝ বয়স থেকে অত্যাধুনিক সব প্রযুক্তির সাথে পরিচিত হয়ে যায়। বিদেশী সংস্কৃতি নিজের মধ্যে ধারন করে ভুলে যায় দায় দায়িত্ব ও নিজ ধর্মীয় নিয়ম নীতিকে। পাপের স্রোতে গা ভাসিয়ে দেয়া এই প্রজন্মকে আলোর পথ দেখাতে এই বই যথেষ্ট উপকারী। জীবনে শুধুই আধুনিকতা আর ভোগ বিলাসিতায় মজে থাকতে থাকতে কখন যে মৃত্যুর ফেরেশতা চলে আসে তা আল্লাহ ছাড়া কেউই জানে না।আমরা অনেক কিছু জেনেও তা ভুলে বসে থাকি চর্চার অভাবে। তবে ঠিক-ই অন্যায়ের চর্চা অব্যাহত রাখি। লেখক এই বইয়ে বর্তমান সময়ের বিভিন্ন সমস্যাগুলোর পর্যালোচনা করে তা হাদিসের মাধ্যমে সমাধান করার চেষ্টা করেছেন। বইটি সকল মুসলিম তরুন তরুনীদে পড়া উচিৎ। 

 

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Main Menu